স্বাধীনমত

  • মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিতকরণে বিদ্যালয়গুলোকে শিশুবান্ধব করে গড়ে তুলতে হবে

    বাংলাদেশ অপার সম্ভাবনার দেশ। এই দেশের বিপুল জনসংখ্যাকে জনসম্পদে পরিণত করার মাধ্যমে দ্রুত উন্নতির স্বর্ণ শিখরে পৌঁছান সম্ভব। দেশের জনসংখ্যাকে জনসম্পদে পরিণত করতে হলে শিক্ষার মানোন্নয়ন করতে হবে।   আর শিক্ষার মানোন্নয়ন করতে হলে প্রথমেই প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়ন করা আবশ্যক। বর্তমানে প্রাথমিক শিক্ষায় প্রায় শতভাগ শিশু ভর্তি করা সম্ভব হলেও ঝরে পড়া রোধ করা সবচেয়ে … বিস্তারিত »

  • নাগরিক সেবা সহজীকরণ:সেবাদাতার করনীয়

    নাগরিক সেবা হয়রানিমুক্ত ও দ্রুততম সময়ে প্রদানের জন্য সেবা কুঞ্জ বা সেবা গ্রহীতাদের বসার বিশ্রামাগার নির্মানের পাশাপাশি সেবা প্রদানকারীকে আন্তরিক হওয়া জরুরি। সেবা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে বিশ্রামাগারে বসার চেয়ে অতিদ্রুত সেবা পাওয়াই সেবা গ্রহীতা আশা করে থাকেন।এজন্য কিছু করণীয় আছে—   ১। অধিকাংশ অফিসে জনবল সংকট আছে। ২০ বছর আগেও যে জনবল বর্তমানেও তাই। সেবা গ্রহীতার … বিস্তারিত »

  • আমাদের দেখা প্রথম বিজ্ঞানী! আমার প্রিয় আমানুল্লাহ স্যার।

    রফিকুল ইসলাম ঃ পুরো নাম মো: আমানুল্লাহ মিঞা। পান্টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্বনামধন্য শিক্ষক। বর্তমানে অবসর গ্রহণ করেছেন। একাধারে বিজ্ঞান, সমাজ, বাংলা, ইতিহাস,গণিত, ইংরেজীসহ অন্যান্য বিষয়ে এমন দখল আমি অন্য কারো মধ্যে দেখি নি।   স্যারের কাছ থেকে প্রথম কঙ্কালতন্ত্র দেখা, অনুবীক্ষণ যন্ত্রে কোষ দেখা, বিজ্ঞান ও গণিতের মজার বিষয়ে ধারণা নেয়া। সত্যি স্যারকে দেখে আমি … বিস্তারিত »

  • ‘কালকিনি আওয়ামীলীগের নের্তৃবৃন্দ বেশ- মেনে চলেন নেত্রীর নির্দেশ’

    মোঃ ইকবাল হোসেন : ২০১৪সালের ৫জানুয়ারী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে কালকিনিতে যখন কেন্দ্রীয় আ’লীগের তৎকালিন আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও মাদারীপুর-৩ আসন কালকিনির এমপি সৈয়দ আবুল হোসেন কালকিনির আওয়ামীলীগের রাজনীতির মাঠ নিয়ন্ত্রন করেন। তখন তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ ওঠে। অভিযোগগুলোর ভিত্তি ছিল ঢাকা বা কেন্দ্রীয় রাজনীতি ভিত্তিক। সেখানে আবুল হোসেন নির্দোষ গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার দাবী করে … বিস্তারিত »

  • ডঃ রাধা বিনোদ পাল

    হুমায়ুন কবির: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর,উপজেলায় জন্ম বিশিষ্ঠ শিক্ষাবিদ ও প্রথম সিংহ পুরুষ ড. রাধা বিনোদ পাল। জন্ম ১৮৮৬ সালে কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার ২নং মথুরাপুর ইউনিয়নের শালিমপুর গ্রামে। তিনি ১৯০৮ সালে গনিতে এম এস সি ডিগ্রী লাভ করেন।   ১৯১১ সাল থেকে ১৯২০ সাল পর্যন্ত ময়মনসিংহ আনন্দ মোহন কলেজে অধ্যাপনা করেন ও ১৯২০ সাল থেকে কলকাতা হাইকোর্টে … বিস্তারিত »

  • বেগম জিয়া কি দল থেকে কাপুরুষদের হটাবেন?

    নের পর বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকার ও সরকারি দল ‘আগে উন্নয়ন ও পরে গণতন্ত্র’ বা ‘বেশি উন্নয়ন কম গণতন্ত্র তত্ত্ব’ চালু করেছে। রাষ্ট্র শাসনে সরকার সংবিধান স্বীকৃত মৌলিক গণতান্ত্রিক অধিকার খর্ব করছে প্রতিপক্ষের। প্রধান বিরোধী দল বিএনপিকে চার দেয়ালের মধ্যে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। এটা আরেক ধরনের কারাগার। বিএনপি সেই কারাগারের ‘লৌহ কপাট’ ভাঙতে পারেনি।

    ২০১৬ সালে জঙ্গিবাদ রক্তচক্ষু দেখালেও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তত্পরতায় তা আশঙ্কাজনক হারে বাড়তে পারেনি। তবে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরির ঘটনা আমাদের ব্যাংকিং ব্যবস্থার প্রতি মানুষের আস্থা নষ্ট করেছে। ওই বছরের ফেব্রুয়ারিতে কয়েকটি ব্যাংকের এটিএম বুথে ‘স্কিমিং ডিভাইস’ বসিয়ে গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করে টাকা লোপাটের পর এই অনাস্থা আরও বেড়ে যায়। এই দুটি ঘটনা আমাদের আর্থিক খাতের নিরাপত্তা সংকট স্পষ্ট করেছে। ২০১৭-তে এমন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির সম্মুখীন যেন হতে না হয়। ২০১৬ সালে একটি অশনি সংকেত আছে— তা হচ্ছে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স প্রবাহের নিম্নগতি। বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ স্থবিরতাও কাটাতে পারেনি ২০১৬। নতুন বছরে এ বিষয়গুলোর প্রতি গুরুত্ব আরোপ না করলে পরিস্থিতি আরও জটিল হবে।

    ২০১৬ খ্রিস্টাব্দ রাজনীতিতে তিনটি সুখবর দিয়েছে জাতিকে। ১. ওই বছর দেশের প্রধান দুটি রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছে নির্বিবাদে, ২. নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে একটি গ্রহণযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হয়েছে আনন্দঘন পরিবেশে, ৩. নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে রাষ্ট্রপতির উদ্যোগে সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপ শুরু হয়েছে এবং প্রধান দুটি দলই তাতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে। সবার মনে আশা জেগেছে যে, রাষ্ট্রপতির উদ্যোগ সফল হবে এবং সবার কাছে মোটামুটি মেনে নেওয়ার মতো একটি নির্বাচন কমিশন গঠিত হবে আগামী মাসে (ফেব্রুয়ারিতে)। এ-ও আশা করা হচ্ছে যে, কমিশনটি ঠিকভাবে গঠনের পর আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনটিও অংশগ্রহণমূলক ও গ্রহণযোগ্য হবে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের মতো। একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের মাধ্যমে গঠিত সংসদ ও সরকার দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে আরও উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথে।

    এক্ষেত্রে আবারও শুরুর প্রসঙ্গে যেতে হবে। কোনো নির্বাচন ও গণতন্ত্রকে অর্থবহ করার ক্ষেত্রে শুধু সরকারপক্ষ নয়, বিরোধীপক্ষকেও যোগ্য ও কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হয়। আগামী নির্বাচনকে অর্থবহ করতে হলে বর্তমান ক্ষমতাসীনদের মূল প্রতিপক্ষ বিএনপিকে দৃশ্যমান ও কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের প্রতি ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করে আন্দোলনে মাঠে না থাকার সরাসরি অভিযোগ করেছেন তিনি। একসময় আওয়ামী লীগের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে যেখানে অহংকার করে বলেছিলেন, ‘আপনাদের মোকাবিলার জন্য আমার ছাত্রদলই যথেষ্ট’ সেই ছাত্রদলের আজ এ ভঙ্গুর ও জরাজীর্ণ দশা কেন তা কি ভেবেছেন ম্যাডাম খালেদা দিয়া? সুন্দর ‘ফলদ বাগান’ নিজ হাতে ধ্বংস করে আগাছা-পরগাছার জঙ্গল বানিয়ে এ বাগান থেকে সুস্বাদু ফল আশা করা কি সঙ্গত?

     

    অছাত্র, বিবাহিত, বয়স্ক ব্যক্তিদের দিয়ে ছাত্র সংগঠন হয় না এটা না বোঝার কথা নয়। কিন্তু কমিটি গঠনে অস্বচ্ছ, অনৈতিক পন্থা অবলম্বন করে ছাত্রদলকে একটি অক্ষম সংগঠনে পরিণতি করেছেন দলের ‘নেতারা’ই। ছাত্রদলের জেনুইন অনেক নেতা-কর্মী এ অভিযোগ হরহামেশাই করে। কিন্তু কে শোনে কার কথা? এখন ‘মান্দার’ গাছ থেকে আম-কাঁঠাল ফল চেয়ে কী লাভ? ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের ওপর ক্ষোভ ঝাড়তে গিয়ে দলীয় নেতাদেরও ‘একহাত’ নিয়েছেন বেগম জিয়া। আন্দোলনে তারাও মাঠে ছিলেন না বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। এই নেতাদের বেগম জিয়া দেরিতে চিনলেন। দলের সাবেক মহাসচিব আবদুল মান্নান ভূঁইয়া তাদের চিনেছিলেন অনেক আগে। তাই দলকে দুর্নীতি, দুর্নীতিবাজ ও দুর্বৃত্তায়নমুক্ত করার জন্য তিনি সংস্কার প্রস্তাব উত্থাপন করে এই ব্যক্তিদের হটিয়ে দলে নতুন প্রাণের সঞ্চার করতে বলেছিলেন; সৎ, দুর্নীতিমুক্ত সাহসী তরুণদের নেতৃত্বের উপরিকাঠামোয় অন্তর্ভুক্ত করতে বলেছিলেন, ভোগবাদ ও লুণ্ঠন সংস্কৃতি পরিহার করে আদর্শবাদ প্রতিষ্ঠার আহ্বান জানিয়েছিলেন।

     

    প্রকৃত অর্থে বিএনপিকে জিয়ার বিএনপিতে পরিণত করার কথা বলেছিলেন। বিলম্বে হলেও ম্যাডাম সেসব সত্য এখন উপলব্ধি করছেন। একটি অংশগ্রহণমূলক, গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আদায় করার জন্য এবং একটি অর্থবহ নির্বাচন নিশ্চিত করার জন্য বিএনপিকে যোগ্য ও প্রত্যাশিত ভূমিকা পালন করতে হলে, যাদের বিরুদ্ধে বেগম জিয়া নিজ মুখে অভিযোগ করেছেন, সেসব আবর্জনা সাফ করতে হবে।   তা না হলে এই ভীতু-কাপুরুষ নেতৃত্ব দিয়ে বিএনপি যেমন লক্ষ্য অর্জন করতে পারবে না, তেমনি ভালো নির্বাচন ও কাঙ্ক্ষিত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায়ও কোনো অবদান রাখতে পারবে না।

    লেখক : সাংবাদিক, কলামিস্ট।

    ই-মেইল :  kazi.shiraz@yahoo.com

    সুত্র-বাংলাদেশ প্রতিদিন

    -->

    ঢাকাঃ গত ৫ জানুয়ারি ২০১৭ শাসক দল আওয়ামী লীগ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণতন্ত্র রক্ষা দিবস পালন করেছে। এর তিন দিন আগে সরকারের ক্ষমতার পার্টনার জাতীয় পার্টিও একই স্থানে তাদের জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে বেশ জমকালো এক সমাবেশ করেছে। কিন্তু বিএনপিকে ৭ জানুয়ারি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি দেয়নি পুলিশ প্রশাসন। বলা নিষ্প্রয়োজন যে, সরকার চায়নি বলেই বিএনপিকে সমাবেশের … বিস্তারিত »

  • কচিকাচাদের কেকানন্দ

        কুষ্টিয়াঃ  দুর্গাপুরে আজ বিকালে বসেছিল কচিকাচার আনন্দহাট। কেক কেটে, চপ মিস্টিমুখরে ছোটবাচ্চারা আনন্দ ভাগা ভাগি করলো।   বার্ষিক পরীক্ষা শেষে সব বন্ধুবান্ধবীদের নিয়ে এ্ ভিন্ন উৎসব অন্যান্যদেরপ্রাণিত করবে নি:সন্দেহে

  • ইউনিয়ন পরিষদে সরকারী কর্মকর্তাগন নিয়মিত অফিস করলে সেবার মান উন্নয়ন হবে

    এস,এম,রফিকুল ইসলাম (রফিক) কাউন্সিলর, কুমারখালী পৌরসভা বর্তমান ডিজিটাল যুগে জনগন বলছে। মামু রাগ করবেন না। রাগ করলে কিন্তু মোবাইলে সুইজটা টিপ দিমু। কোথায় টিপ দিবে?  দিন পালটাইছে মামু ভাংগা ঘড়ে মন্ত্রী মহোদয় প্রশ্নের উত্তর সহ সমাধানের ব্যাবস্থা গ্রহন। বিশ্বের উন্নয়ন রাষ্ট্রের চেয়ে অতিদ্রুতগামী সেবা পাচ্ছেন। আমিরিকার ৯৯৯ চেয়ে ফেসবুক এর মাধ্যমে বেশী সেবা পাচ্ছে। জনপ্রতিনিধি … বিস্তারিত »