তালাকপ্রাপ্তা স্ত্রীর গোপনাঙ্গে মরিচের গুড়া ঢেলে নির্যাতন

Feature Image

জেলা প্রতিনিধি, স্বাধীনবাংলা২৪.কম

দিনাজপুর: দিনাজপুরের এক পল্লীতে সাবেক স্ত্রীর গোপনাঙ্গসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে মরিচের গুড়া ঢেলে বর্বর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাবেক স্বামী সিরাজুল ইসলাম, ভগ্নিপতি আবু বক্কর সিদ্দিক ও বোন লাইলি বেগমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নির্যাতিতা ওই নারী এখন দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসাধীন। হাসপাতালের ইনডোর মেডিকেল অফিসার ডা. হাসনাথ পারভেজ জানান, গোপনাঙ্গে মরিচের গুড়া দিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে ওই নারীকে।

ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার সকালে দিনাজপুর সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের তরিমপুর গ্রামে।

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানা সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুর সদর উপজেলার ৬নং আউলিয়াপুর ইউনিয়নের তরিমপুর গ্রামে মৃত জয়াদ আলীর ছেলে সিরাজুল ইসলাম তার তিন সন্তানের জননী স্ত্রীকে সম্প্রতি তালাক দেন। বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার জন্য অমানবিক নির্যাতন করেন।

এ ব্যাপারে তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রী আদালতে মামলা করলে তা তুলে নেয়ার জন্য স্বামী সিরাজুলসহ পরিবারের লোকজন প্রাণনাশের হুমকি দেন।

বুধবার সিরাজুল ইসলামসহ তার স্বজনরা মিলে ওই গৃহবধূকে শারীরিক নির্যাতন শেষে শরীরের গোপনাঙ্গসহ বিভিন্ন স্থানে মরিচের গুড়া ঢেলে দেন।

এসময় তার চিৎকারে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ স্থানীয়রা ছুটে আসলে সিরাজুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরে তাকে দ্রুত দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আউলিয়াপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. ইলিয়াস আলী জানান, সিরাজুল ইসলামের তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীর চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে এসে দেখি যন্ত্রণায় ছটফট করছে। মুখ দিয়ে ফেনা পড়ছে। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করি।

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ফখরুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে থানায় মামলার পরপরই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/আমআর

আরো খবর »