ছেলে দেশে ফিরে ফ্ল্যাটে পেলেন মায়ের কঙ্কাল!

Feature Image

২০১৬ সালের এপ্রিল মাসে বিদেশে থাকা ছেলের সঙ্গে শেষবারের মতো কথা হয়েছিল মায়ের। ওই সময় মা ছেলেকে দুঃখ করে জানিয়েছিলেন, মুম্বাইয়ের লোখণ্ডওয়ালার ওশিয়ারা এলাকার ওয়েলস কট সোসাইটির বহুতল ভবনের ফ্ল্যাটে তার খুব একা একা লাগে। একাকিত্ব কাটাতে বৃদ্ধাশ্রমে রেখে আসার জন্য অনুরোধ করেছিলেন ছেলেকে।

তারপর দীর্ঘদিন মায়ের সঙ্গে যোগাযোগ হয়নি ছেলের। কিন্তু দেশে ফিরে মায়ের কঙ্কাল দেখতে পাবেন- এটা কল্পনাও করতে পারেননি পেশায় ইঞ্জিনিয়র ঋতুরাজ সাহানি।

১৯৯৭ সালে একটি ইঞ্জিনিয়ারিং ফার্মে চাকরি নিয়ে আমেরিকায় চলে যান ঋতুরাজ। ২০১৩ সালে তার বাবা মারা যাওয়ার পর থেকে বহুতল ভবনের ১০ তলার ওই ফ্ল্যাটে একা থাকতেন তার মা আশা সাহানি।

রোববার আমেরিকা থেকে মাকে দেখতে দেশে আসেন ঋতুরাজ। এরপর বিকেলে ফ্ল্যাটে পৌঁছে দেখেন দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। বারবার ডাকার পরও কেউ দরজা না খোলায় সন্দেহ হয় তার। দ্রুত একজন চাবিওয়ালাকে ডেকে এনে ফ্ল্যাটের তালা ভাঙেন তিনি।

এরপর শোওয়ার ঘরে গিয়ে দেখেন, বিছানায় পড়ে রয়েছে তার মায়ের মৃতদেহ। অবশ্য মৃতদেহে কোনো মাংস ছিল না। কেবল একটা কঙ্কাল পড়ে ছিল। এরপরেই ওশিয়ারা থানায় খবর দেন ঋতুরাজ।

ওশিয়ারা থানা পুলিশের কর্মকর্তা সুভাষ কনভিলকর জানান, সম্ভবত দীর্ঘ দিন আগে মারা গিয়েছেন আশা সাহানি। দেহে কোনো ধরনের আঘাতের চিহ্ন না থাকায় ও দরজা ভিতর থেকে বন্ধ থাকায় এটা স্বাভাবিক মৃত্যু বলেই প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের জন্য কঙ্কালটি মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও জানান, প্রতিবেশীদের দাবি, বন্ধ ফ্ল্যাট থেকে কোনো গন্ধ পাননি তারা। তাদের বক্তব্যও রেকর্ড করেছে পুলিশ। সূত্র: হাফপোস্ট।

Loading...

আরো খবর »