আল্লাহ-রাসূলকে সাক্ষী রেখে বিয়ে হবে কি?

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ইসলাম: জারা ও রাজা আমরা দুজন দুজনকে বিয়ে করেছি ; আল্লাহ ও রাসূলকে সাক্ষি রেখে। কিন্তু আজঅবধি আমরা দুজন ছাড়া আর কেউ জানে না। অথচ আমরা দুজন দুজনকে মন থেকে স্বামী স্ত্রী হিসেবে মেনে নিয়েছি। এখন জানার বিষয় হলো আমাদের বিয়েটা কি শরিয়ত সম্মতভাবে হয়েছে?

আপনারা যেভাবে বিয়ে করেছেন, এভাবে বিয়ে হয় না। বিয়ের জন্য দু’জন বিবেকবান,প্রাপ্তপ্তবয়স্ক পুরুষ অথবা একজন পুরুষ, দু’জন মহিলা সাক্ষীর সামনে ইজাব (প্রস্তাব) কবুল করা অত্যাবশ্যক। সাক্ষী ছাড়া বিয়ে শুদ্ধ হয়না। সুতরাং শরীয়তের দৃষ্টিতে আপনারা এখনো একে অপরের স্বামী-স্ত্রী নন। এবং আপনাদের সাংসারিক জীবন,দেখা-সাক্ষাত সব ধরনের যোগাযোগ অবৈধ।

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: “যে নারী তার অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া বিয়ে করবে তার বিবাহ বাতিল, তার বিবাহ বাতিল, তার বিবাহ বাতিল।” (হাদিসটি তিরমিযি : ১০২১)

বিয়ের আকদ এর সময় সাক্ষী রাখতে হবে। দলীল হচ্ছে- নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, “অভিভাবক ও দুইজন সাক্ষী ছাড়া কোন বিবাহ নেই।” (তাবারানী কর্তৃক সংকলিত, সহীহ জামে : ৭৫৫৮)

বিয়ের প্রচারণা নিশ্চিত করতে হবে। দলীল হচ্ছে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের বাণী- “তোমরা বিয়ের বিষয়টি ঘোষণা কর।”(মুসনাদে আহমাদ ১০৭২)

অতএব, নিজেদের স্বামী স্ত্রী মনে করা এবং সেরকম আচরণ করা কবিরা গোনাহ। পরকাল ও চিরস্থায়ী আজাবের কথা মাথায় রেখে এজাতীয় গোনাহ থেকে বেঁচে থাকা অপরিহার্য। ফাতাওয়া শামী- ৪/৮৭ , মাজমাউল আনহুর- ১/৩৮৬

আল্লাহ-রাসূলকে সাক্ষী রেখে বিয়ে হবে কি ?

জাকারিয়া হারুন : জারা ও রাজা আমরা দুজন দুজনকে বিয়ে করেছি ; আল্লাহ ও রাসূলকে সাক্ষি রেখে। কিন্তু আজঅবধি আমরা দুজন ছাড়া আর কেউ জানে না। অথচ আমরা দুজন দুজনকে মন থেকে স্বামী স্ত্রী হিসেবে মেনে নিয়েছি। এখন জানার বিষয় হলো আমাদের বিয়েটা কি শরিয়ত সম্মতভাবে হয়েছে?

আপনারা যেভাবে বিয়ে করেছেন, এভাবে বিয়ে হয় না। বিয়ের জন্য দু’জন বিবেকবান,প্রাপ্তপ্তবয়স্ক পুরুষ অথবা একজন পুরুষ, দু’জন মহিলা সাক্ষীর সামনে ইজাব (প্রস্তাব) কবুল করা অত্যাবশ্যক। সাক্ষী ছাড়া বিয়ে শুদ্ধ হয়না। সুতরাং শরীয়তের দৃষ্টিতে আপনারা এখনো একে অপরের স্বামী-স্ত্রী নন। এবং আপনাদের সাংসারিক জীবন,দেখা-সাক্ষাত সব ধরনের যোগাযোগ অবৈধ।

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন: “যে নারী তার অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া বিয়ে করবে তার বিবাহ বাতিল, তার বিবাহ বাতিল, তার বিবাহ বাতিল।” (হাদিসটি তিরমিযি : ১০২১)

বিয়ের আকদ এর সময় সাক্ষী রাখতে হবে। দলীল হচ্ছে- নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, “অভিভাবক ও দুইজন সাক্ষী ছাড়া কোন বিবাহ নেই।” (তাবারানী কর্তৃক সংকলিত, সহীহ জামে : ৭৫৫৮)

বিয়ের প্রচারণা নিশ্চিত করতে হবে। দলীল হচ্ছে নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের বাণী- “তোমরা বিয়ের বিষয়টি ঘোষণা কর।”(মুসনাদে আহমাদ ১০৭২)

অতএব, নিজেদের স্বামী স্ত্রী মনে করা এবং সেরকম আচরণ করা কবিরা গোনাহ। পরকাল ও চিরস্থায়ী আজাবের কথা মাথায় রেখে এজাতীয় গোনাহ থেকে বেঁচে থাকা অপরিহার্য। ফাতাওয়া শামী- ৪/৮৭ , মাজমাউল আনহুর- ১/৩৮৬

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

আরো খবর »