শেয়ারবাজারে দরপতন

Feature Image

স্বাধীনবাংলা২৪.কম

ঢাকা: টানা ঊর্ধ্বমুখিতার পর সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) কিছুটা মূল্য সংশোধন বা দরপতন হয়েছে। এদিন উভয় বাজারে মূল্যসূচকের সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণও। সেই সঙ্গে কমেছে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

এর আগে বুধবার পর্যন্ত উভয় পুঁজিবাজারে টানা তিন কার্যদিবস অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম এবং মূল্যসূচক উর্ধ্বমুখী ছিল। আর শেষ ১০ কার্যদিবসের মধ্যে নয় দিনই বাড়ে মূল্যসূচক। ধারাবাহিক সূচক বাড়ায় বুধবার ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে সর্বোচ্চ অবস্থানে পৌঁছে যায়।

ওই রেকর্ড গড়ার পরদিন বৃহস্পতিবার মূল্যসূচকের বড় পতন হলো। এদিন ডিএসইএক্স ৩২ পয়েন্ট কমে ৫ হাজার ৭৪৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। প্রধান মূল্যসূচকের পাশাপাশি কমেছে অপর দুটি সূচকও। ডিএসই-৩০ সূচক ১৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ১০৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১০ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৩০৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

আজ ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ১৯৩টি বা ৫৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বুধবারের তুলনায় কমেছে। অন্যদিকে বেড়েছে ৯২টির বা ২৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির বা ১৪ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম।

মূল্যসূচকের সঙ্গে বৃহস্পতিবার ডিএসইতে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। আজ ডিএসইতে মোট ১ হাজার ৫ কোটি ৪৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ১ হাজার ১৬৪ কোটি ৯২ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে লেনদেন কমেছে ১৫৯ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এ নিয়ে বাজারটিতে টানা দুই কার্যদিবস লেনদেন কমল।

বৃহস্পতিবার টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে কেয়া কসমেটিকসের শেয়ার। এদিন কোম্পানির ৪৫ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা গ্রামীণফোনের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৩৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকার। আর ৩৩ কোটি ৩১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে একমি ল্যাবরেটরিজ।

লেনদেনে এরপর রয়েছে বারাকা পাওয়ার, ফু-ওয়াং ফুড, সাইফ পাওয়ার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, এমজেল বিডি, ডরিন পাওয়ার এবং সিএনএ টেক্সটাইল।

এদিকে দেশের অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) আজ সিএসসিএক্স সূচক ৪৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১০ হাজার ৭৭৬ পয়েন্টে। এদিন বাজারটিতে মোট ৬২ কোটি ৫৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৬৯ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার।

বৃহস্পতিবার সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৫৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দাম বেড়েছে ৭২টির। অপরদিকে কমেছে ১৫৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩১টির দাম।

স্বাধীনবাংলা২৪.কম/এমআর

Loading...

আরো খবর »